সাহ from AponPost's blog

দুইদিন ধরে আব্বার পেট খারাপ। সন্ধ্যায় হুংকার দিল, নিজে রান্না করবে! আমি বললাম, মাফি মুশকিলা, করেন। সন্ধ্যায় ও দেখলাম বেগুন ভর্তা বানাইসে, সাড়ে নয়টায় খাইতে যেয়ে দেখি ওইটা বেগুন ভর্তা না, ডাইল, ঘণ ডাইল! আব্বারে বললাম আমি হোটেলে যাই, খেয়ে আসি! কচিঁ ভেড়ার মাংস আর ডাইল দিয়া ভাত খেয়ে আসলাম। বিয়ে করা বড্ড প্রয়োজন, এভাবে কি হয়?

যাক গে, কথা সেটা না। গল্প অন্য বিষয় নিয়ে। ঈদের পরদিন খুব সম্ভবত, এক রোগী জাবের মাহাদী মুবারাক আল ফতেহ, পেশায় পুলিশ, তাওয়ারীতে (ইমার্জেন্সী) আমাদের গালি গালাজ করে। আমি আর খালিদ এক্সপ্ল্যানেশন চাওয়ায় মাথার রাবারের ব্যান্ড ছুড়ে মারে আমাদের দিকে, তারা দুই জন, আমরা দুইজন! ;) এই আচরনের মানে হল মারো নইলে মরো!

সত্যি কথা বলতে, খালিদ না থাকলে আমি বেধড়ক পিটুনি খাইতাম। খালিদ পুরাই গুলিস্তান স্টাইলে "এগুলি কি কর, এগুলি কি কর বলে" জাবের মাহাদীকে উত্তর আফ্রিকান প্যাঁচে আটকে রাখে, আমি কয়েকটা চড়, ঘুষি লাত্থি মারতেই, জাবের এর সাথে থাকা অন্য আরব চেয়ার ছুড়ে মারে! আমি সরে যেতে চাইলে দরোজার উপর পড়ি, দরোজা খুলে যায় মেল অবসার্ভেশন রুমের, দৌড়ে দুই আরব বের হয়ে যায়, এবং বিশাল ভুল করে, তাদের সাথে থাকা হস্পিটালের কাগজ টা (ই আর পেপার) নিয়ে দৌড়ে গাড়িতে উঠে পালায়!

বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় সম্পত্তি নষ্টে কিন্তু একটা কমন কেস আছে। মোরোভার, এখানে ডাক্তারদের সাথে অসদাচারণ এর শাস্তি হইলো, দশ বছরের জেল কিংবা পাচঁ লাখ এস আর (১ কোটি বিডিটি) জরিমানা। জাবের এর সবচাইতে বড় ভুল ছিল সে ই আর পেপার নিয়ে গেছে! নিজে দোষ না করলে সে পরিচয় গোপন করবে কেন? সেদিন রাতেই আমি আরর খালিদ তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় আইনের ভায়োলেশন সহ তিন পেজের কম্পলেইন দিই!

ওয়াল্লাহ! বিশ্বাস করবেন না, পরদিন জাবের মাহাদীর গুষ্ঠির অর্ধেক লোক এসে আমার আব্বা, হস্পিটাল ডাইরেক্টর এর কাছে হাত পেতে বসে আছে, ডা স্যাম (আসলেই এখানে আমাকে স্যাম ডাকে) কে বলুন মালিশ হইতে, দরকারে ফুলুস খাসারা (আর্থিক জরিমানা) দিব। আব্বা লজ্জিত হয়ে বলেন, আনা আওলাদ মাফি মিস্কিন! (আমার পুত্র মিসকীন নয়) ;)

আমি সাথে সাথে এপোলজি এক্সেপ্ট করি, সেও মুচলেকা দেয়, আমিও ইংলিশে কাগজে লিখে দিই, আমি তাকে ক্ষমা করেছি। শুধু বাকি থাকে থানায় উপপস্থিত হয়ে আমাকে কেস উইথড্রো করার কাজ। আমি যতক্ষণ না উইথ ড্রো করব, সে ততক্ষণ ওই এলাকা লীভ করলেই পুলিশ তাকে এরেষ্ট করবে!

আমি তাকে বলি, ঠিকাছে, তুই আজকে যা, আমি পরে থানায় যাব। দুই তিন দিন পর আজ গেসিলাম থানায়। কেইস উইথ ড্র করার সময় ওরে রুম থেকে বের করে দিয়ে, আমাকে থানার মুদীর জিজ্ঞেস করসে, আমি কি আসলেই ক্ষমা করে দিসি, নাকি ও কোন ভয় দেখাইছে! আমি হেসে বললাম, খাল্লি বাল্লি মুদীর!

বের হওয়ার সময় কথা বলতে গিয়ে বুঝলাম জাবের এর ঠান্ডা লাগছে, ওষুধ এর নাম হোয়াটস এপে লিখে দিলাম। বললাম, দেখ মাইর ও খাইলি, মান সম্মান ও খোয়াইলি, কেন হস্পিটালে এসে চুদুর ভুদুর করলি? মানুষ কে লাজেম "এহতেরাম" (শ্রদ্ধা/সম্মান) করবি, আমরা সবাই মানুষ! আনা কালাম সোদক, সাহ?

Share:
Previous post     
     Next post
     Blog home

The Wall

No comments
You need to sign in to comment

Post

By AponPost
Added Jun 30

Tags

Rate

Your rate:
Total: (0 rates)

Archives